জুন ১৪, ২০২১
দৈনিক আলোর কন্ঠ » ব্লগ » সারাদেশের প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়গুলোর স্বীকৃতি, এমপিওভুক্তির দাবীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

সারাদেশের প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়গুলোর স্বীকৃতি, এমপিওভুক্তির দাবীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

আলোচিত কন্ঠ নিউজ ডেস্কঃ
সারাদেশের প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়গুলোর স্বীকৃতি, এমপিওভুক্তির দাবীতে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সোমবার (৩১মে) সকাল ১০টা থেকে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হচ্ছে বাংলাদেশ প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির আহবানে এই অবস্থান কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছে সারাদেশ থেকে আসা প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় গুলোর প্রায় সহস্রাধিক শিক্ষক কর্মচারী। বিদ্যালয় গুলোর একসঙ্গে স্বীকৃতি ও এমপিও ভুক্তির দাবীতে অবস্থান কর্মসূচি চলবে দুইদিন ব্যাপী।

সংগঠনের আহবায়ক আরিফুর রহমান অপু আলোচিত কণ্ঠ-কেজানান, সারাদেশের প্রায় ২ হাজার প্রতিবন্ধী স্কুল একসঙ্গে স্বীকৃতি ও জাতীয়করণ এবং পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সরকার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। তিনি আরও বলেন, আমরা ইতিমধ্যে সরকারের উচ্চপর্যায়ে ১১ দফা দাবী পেশ করেছি। আশা করছি নীতিনির্ধারকরা প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় গুলোর বিষয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিবেন। এরপরেও দাবী মানা না হলে বৃহত্তর কর্মসূচির মাধ্যমে দাবী আদায় করতে বাধ্য হবে সারাদেশের প্রতিবন্ধী শিক্ষকদের এই সংগঠন।
অবস্থান কর্মসূচীতে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এবং রংপুর বিভাগের আঞ্চলিক সমন্বয়কারী ও ভারত কমিটির সভাপতি মীর এম এম শামীম। তিনি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জীবনমান উন্নয়ন ও সমাজের মূলধারার সঙ্গে সম্পৃক্ত করতে তাদের যৌক্তিক ও মানবিক দাবি সমূহ মেনে নেয়ার জন্য সরকারের নিকট অনুরোধ জানান। শিক্ষকদের ১১ দফা দাবি গুলো হলো-
>> প্রতিবন্ধিতা সম্পর্কিত সমন্বিত বিশেষ শিক্ষা নীতিমালা অনুযায়ী বিদ্যালয়গুলোর স্বীকৃতি ও এমপিও প্রদান;>> স্বীকৃতির তারিখ হতে শতভাগ বেতন ভাতা ও সব ধরনের সুবিধাদান নিশ্চিতকরণ; >> সব বিদ্যালয়ের প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের শতভাগ উপবৃত্তি প্রদান; >> সব বিদ্যালয়ে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়ের শিক্ষা কারিকুলাম অনুযায়ী বিনামূল্যে পাঠ্যবই বিতরণ নিশ্চিতকরণ;>> প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের উপযোগী স্বাস্থ্যসম্মত খাবার পরিবেশন করা;>> সব বিদ্যালয়ে চাহিদানুযায়ী শিক্ষা উপকরণ শতভাগ নিশ্চিত করা;>> প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়গুলোতে নিয়মিত মনিটরিং নিশ্চিত করা;>> শিক্ষক-কর্মচারীদের মানোন্নয়নমূলক ট্রেনিংসহ সংশ্লিষ্ট সব সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা;>> শতভাগ বিদ্যালয়ে আধুনিক মানসম্পন্ন প্রতিবন্ধীবান্ধব ভবন নির্মাণ নিশ্চিত করা;>> প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়গুলোতে আধুনিক থেরাপি সরঞ্জাম সরবরাহসহ থেরাপি সেন্টার চালু করা এবং>> শিক্ষার্থীদের শিক্ষাজীবন শেষে যোগ্যতা অনুযায়ী কর্মসংস্থানসহ আত্ম-নির্ভরশীল জীবন-যাপনের নিশ্চয়তা প্রদান করা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!
%d bloggers like this: