প্রাণিসম্পদ খাত থেকে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন সম্ভব

 

গার্মেন্টসসহ অন্যান্য খাতের মতো মাংস ও অন্যান্য সামগ্রী রফতানি করে প্রাণিসম্পদ খাত থেকে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে মন্ত্রীর দফতর কক্ষে বাংলাদেশ ভেটেরিনারি অ্যাসোসিয়েশন, বঙ্গবন্ধু ভেটেরিনারি পরিষদ ও বিসিএস প্রাণিসম্পদ ক্যাডার অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, প্রাণিসম্পদ বিভাগে যারা দক্ষ জনশক্তি রয়েছে, তাদের আন্তরিকতা ও একাগ্রতা থাকলে দেশে প্রাণিসম্পদের উন্নয়নে অভাবনীয় সাফল্য আসবে। এ সাফল্য প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে স্বাবলম্বী করবে শুধু তাই নয়, বরং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। পৃথিবীর বিভিন্ন মুসলিম দেশসহ অন্যান্য দেশে হালাল ও ভালো মাংস আমদানির চাহিদা রয়েছে। প্রক্রিয়াজাতকরণসহ প্রাণিসম্পদের বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন করতে পারলে রফতানি ক্ষেত্রে আমরা অনেকদূর এগুতে পারবো।

মন্ত্রী আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী চান না দেশে একজন মানুষও না খেয়ে থাকুক। সংবিধানে বর্ণিত মৌলিক চাহিদা তথা অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা নিশ্চিত করতে চান তিনি। প্রান্তিক কৃষক ও জেলেদের জন্য আমরা এমন কিছু করে দিতে চাই যাতে তাদের দুরাবস্থা না থাকে। প্রাণিসম্পদ উন্নয়নের জন্য আমরা যদি তাদের সহজে ঋণ দিতে পারি, দিকনির্দেশনা দিতে পারি তাহলে দারিদ্র্য একদিন জাদুঘরে চলে যাবে। সেক্ষেত্রে প্রাণিসম্পদের বিভিন্ন পর্যায়ে যারা সম্পৃক্ত আছেন তাদের যথাযথ ভূমিকা রাখতে হবে।

অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রত্যাশার জায়গা থেকে বলবো, শুধু অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রিক জায়গায় আবদ্ধ থাকবেন না। দেশ, জাতি, সমাজ সভ্যতা, মানুষের প্রতি দায়িত্ববোধ এবং প্রাণিকূলের জন্য দায়িত্ব পালন করতে হবে। এ জায়গা থেকে থেকে বিচ্যুত হবেন না।

এ সময় অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ মাংস, দুধ ও ডিমে দেশকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে মন্ত্রণালয়ের গৃহিত সকল কার্যক্রমে সহযোগিতার আশ্বাস দেন। পরে অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ মন্ত্রীর হাতে অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা স্মারক ক্রেস্ট তুলে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: